Sunday, 11/4/2021 | : : UTC+6
Green News BD

মাটি ধস : কাপ্তাই সড়ক চরম ঝুঁকিতে

মাটি ধস : কাপ্তাই সড়ক চরম ঝুঁকিতে

১ আগস্ট ১৫।। টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের কারণে কাপ্তাই চট্টগ্রাম মহাসড়কের একাধিক অংশে চরম ঝূঁকি দেখা দিয়েছে। ঝূঁকির স্থান গুলোতে লাল পতাকা তুলে সর্বসাধারণকে সতর্ক করা হয়েছে। ভাঙ্গন রোধে ভাঙ্গন কবলিত অংশে প্লাষ্টিক বিছিয়েও কোন সুফল পাওয়া যাচ্ছেনা সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে কাপ্তাই সড়কের বরইছড়ি, শীলছড়ি, চিৎমরম, বালুর চর, লগগেইটসহ বিভিন্ন স্থানে সড়কের নিচ থেকে মাটি সরে পড়েছে। কোন কোন স্থানে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। তবে সব চেয়ে বড় ফাটল দেখা দিয়েছে কাপ্তাই সড়কের লগ গেইট অংশে। সড়কের একেবারে পাশ ঘেঁষে রাচ্চার নিচে অনেক গুলো বচ্চি ঘর রয়েছে। বচ্চির ১০/১২টি ঘর চরম ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় প্রশাসন বাসিন্দাদের সরিয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে স্থানান্তর কারে। তবে বচ্চি ঘরের সথে প্রায় লাগোয়া কাপ্তাই সড়কটিও মারাত্মকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে। প্লাষ্টিক বিছিয়ে পাহাড় ধস ঠেকানোর চেষ্টা করেও সুফল পাওয়া যাচ্ছেনা। প্রতিদিন বৃষ্টি হচ্ছে আর বৃষ্টির সাথে সড়কের নিচের মাটি ধুয়ে যাচ্ছে। এর ফলে সড়কটি প্রচণ্ড রকমের ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বলে স্থানিয়রা জানান। সতর্কতা স্বরুপ সড়কের পাশে লাল পতাকা টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়েছে।

রাঙ্গামাটি সংরক্ষিত মহিলা সাংসদ ফিরোজা বেগম চিনুর কাপ্তাই উপজেলা প্রতিনিধি মোঃ ইব্রাহিম খলিল জানান, তিনি নিজে সড়কটি পরিদর্শন করেছেন। লগ গেইট অংশ বর্তমানে চরম ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেন। সড়কটি ভেঙ্গে পড়লে কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র, কর্ণফুলী পেপার মিল, বনশিল্প উন্নয়ন কর্পোরেশন, বাংলাদেশ সুইডেন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, বানৌজা শহীদ মোয়াজ্জম নৌ ঘাঁটি, সেনাবাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে। পাশে বিকল্প সড়ক নির্মাণ করারমত জায়গা না থাকায় সড়ক ধসে পড়লে মারাত্মক বিপর্যয় দেখা দিবে। এসব বিষয় ইব্রাহিম খলিল সাংসদকে অবহিত করেছেন বলেও জানান। এদিকে কাপ্তাইয়ের ঝূঁকিপূর্ণ ঘরবাড়ি ও অন্যান্য স্থাপনার বর্তমান অবস্থা সরেজমিন পর্যবেক্ষণ করতে সাংসদ ফিরোজা বেগম চিনু, সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপঙ্কর তালুকদার এবং রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মোঃ সামসুল আরেফিন কাপ্তাই পরিদর্শন করেছেন। বৃষ্টি বন্ধ হলে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে তাঁরা আশ্বাস দেন। কাপ্তাই উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ দিলদার হোসেন বলেন, এবারের টানা ভারী বর্ষণে সমগ্র কাপ্তাই উপজেলা চরম ঝুঁকিতে পড়েছে। উপজেলার ঢাকাইয়া কলোনী, চিৎমরম, বরইছড়ি, শীলছড়ি, ওয়ান্ত্রা, চন্দ্রঘোনা, রাইখালী ইউনিয়নের বিভিস্থানে ঘরবাড়ি ও রাচ্চা ঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অনেক গাছপালা উপড়ে পড়ে। বিদ্যুতের খুঁটি বিদ্ধস্থ হয়ে চার দিন ধরে মানুষ বিদ্যুৎ বিহীন রয়েছেন। অতি বৃষ্টির কারণে লিচুবাগান ফেরিঘাটে পানি উঠে পড়ায় ফেরী চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, কাপ্তাই ও কক্সবাজারের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে বলেও উপজেলা চেয়ারম্যান জানান। কাপ্তাই মানবাধিকার কমিশনের সভাপতি খোরশেদুল আলম কাদেরী বলেন ১৯৯৮ সালের পর কাপ্তাইয়ে এমন টানা ভারী বর্ষণ আর হয়নি। বৃষ্টিতে ওয়াগ্‌গাছড়া চা বাগানেরও ব্যাপক ক্ষতি হয় বলে জানা গেছে।

সূত্রঃ দৈনিক  আজাদী

 

Advisory Editor
Kazi Sanowar Ahmed Lavlu
Editor
Nurul Afsar Mazumder Swapan
Sub-Editor
Barnadet Adhikary 
Dhaka office
38 / D / 3, 1st Floor, dillu Road, Magbazar.
Chittagong Office
Flat: 4 D , 5th Floor, Tower Karnafuly, kazir deori.
Phone: 01713311758

পুরানো খবর

এপ্রিল 2021
শনি রবি সোম বুধ বৃহ. শু.
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930

ছবি ঘর

    WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com