উজাড় হচ্ছে মধুপুর শালবন হুমকিতে জীববৈচিত্র্য

বাঘ, ময়ূর ও ল্যাঙ্গুরসহ বিভিন্ন প্রজাতির বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল টাঙ্গাইলের মধুপুর শালবন বিস্তৃত ছিল এক লাখ ২২ হাজার ৮৭৬ একর ভূমিতে (১৯২৫ সাল থেকে ফরেস্ট সেটেলমেন্ট কর্মকর্তাদের ঘোষণা অনুযায়ী)। বন বিভাগের তথ্য মতে ইতিমধ্যে উজাড় হয়ে গেছে ৮০ হাজার একর ভূমির প্রাকৃতিক বন। বন ভূমি দখল নির্বিচার গাছ কাটার ফলে সংকুচিত হয়ে যাচ্ছে এই প্রাকৃতিক সম্পদ টাঙ্গাইলের শালবন। এখানকার উদ্ভিদ প্রাণী জগৎ বিলুপ্তির পথে।

নির্বিচারে গাছ কাটা এবং অব্যাহত বনভূমি দখলের কারণে দ্রুত সংকুচিত হয়ে আসছে টাঙ্গাইলের শালবন। হুমকির মুখে পড়েছে এই প্রাকৃতিক সম্পদ, বিলুপ্তির পথে এখানকার উদ্ভিদ ও প্রাণীজগৎ।

টাঙ্গাইলের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. জহিরুল হক গণমাধ্যম কে জানান,
মধুপুর উপজেলায় ৪৫ হাজার ৫৬৫ একর, সখীপুরে ৪৭ হাজার ২২০ একর, ঘাটাইলে ২১ হাজার ৮৫৫ একর, মির্জাপুরে সাত হাজার ৫৭৬ একর এবং কালিহাতীতে ৬৬৯ একর জুড়ে ছিল এই বন। এর মধ্যে ৫৮ হাজার ২০৬ একর সংরক্ষিত বনাঞ্চল হিসেবে ঘোষিত।
বর্তমানে প্রায় ৪০ হাজার একরে প্রাকৃতিক বন রয়েছে। বেদখলে আছে প্রায় ৩৮ হাজার একর। সামাজিক বনায়ন করা হয়েছে প্রায় ২৮ হাজার একরে। এছাড়াও, রাবার বাগান করা হয়েছে ১০ হাজার একরে।
বাকি পাঁচ হাজার একরে শহীদ সালাহউদ্দিন সেনানিবাস, বিমান বাহিনীর ফায়ারিং রেঞ্জ এবং বন গবেষণা ইন্সটিটিউটসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

স্থানীয় প্রভাবশালী বহিরাগতরা গাছ কেটে বনভূমি দখল করে
ঘরবাড়ি ও নানা স্থাপনা নির্মাণ সহ এখানে কলা আনারস পেঁপে আম লেবু সহ বিভিন্ন ফল ও সবজির বাগান করেছেন। বাগানগুলোতে মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশক ও রাসায়নিক সার ব্যবহারের ফলে পরিবেশ-জীববৈচিত্র্য ধ্বংসের মুখে পড়েছে।
বনের গাছপালা কমে যাওয়ায় খাদ্য সঙ্কটে পড়েছে বনের হরিণেরা, বনে খাবার নেই তাই প্রায় সময়ই লোকালয়ে চলে আসে বানরেরা।
বিভাগীয় বন কর্মকর্তা জহিরুল হক বলেন, ‘বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি আমাদের কাছে বন দখলকারীদের তালিকা চেয়েছিলে এবং আমরা ইতোমধ্যে সেই তালিকা পাঠিয়েছি।’
তিনি আরও বলেন, ‘মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যে আমাদের এসব দখলকৃত বনভূমি উদ্ধারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে, কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে উদ্ধার অভিযান বিলম্বিত হচ্ছে।’

‘তবে বন রক্ষায় এবং জবরদখলকৃত বনভূমি উদ্ধারে সংশ্লিষ্ট সব মহলের সহযোগিতা প্রয়োজন হবে,’ জানান জহিরুল হক।

Sharing is caring!

Related Articles

Back to top button