Tuesday, 24/11/2020 | : : UTC+6
Green News BD

মাস্ক হবে আরেক মহামারি দূষণের কারণ

মাস্ক হবে আরেক মহামারি দূষণের কারণ

কাজী আব্দুল্লাহ আল বুখারী: করোনাকালীন সময় যখন মানুষ ঘরবন্ধি তখন প্রাণ ফিরে পেয়েছে প্রকৃতি।
সৈকতে নিশ্চিন্তে ডিম পাড়ছে লাখ লাখ অলিভ রিডলে কচ্ছপ। পরিবেশে কমেছে দূষণের মাত্রা। সমুদ্রসৈকতে দলবেঁধে খেলছে ডলফিন। সমুদ্রে দূষণ কমতে শুরু করেছে বলে বিজ্ঞানীদের ধারণা।

জনমানবশূন্য রাস্তায় দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছে বুনো হরিণ, নীলগাই ও বিরল প্রজাতির সিভেট।করোনাকালীন সময়ে বর্তমান পৃথিবীর প্রাণ ও প্রকৃতি যখন নতুন করে জীবন ফিরে পাচ্ছে। সেখানে আমরা আবার নতুন কোনো দূষণের সৃষ্টি করছি না তো?

আমাদের নিত্যদিনের নতুন সঙ্গী হয়ে উঠেছে মাস্ক এবং গ্লাবস। এই মাস্ক এবং গ্লাবস হয়ে উঠেছে প্রকৃতির জন্য এক নতুন আতঙ্কের কারণ। ব্যবহার এর পর যেখানেসেখানে ফেলে দেয়াতে সৃষ্টি হচ্ছে এক নতুন পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা । এবং বিষাক্ত হয়ে উঠছে সমুদ্রের তলদেশ।

যা পরিবেশ বিপর্যয়ের জন্য হুমকি বলে মনে করছেন ফ্রান্সের একদল গবেষক।সামদ্রিক বর্জ্য অপসরণ করতে গিয়ে বিপুল পরিমান মাস্ক এবং গ্লাবস এর দেখা পেয়েছেন তারা। আইনের কঠোর প্রয়োগে এই দূষণ থামানোর দাবি সংগঠনটির ।

করোনার এই মহামারিতে মাস্ক গ্লাবস সহ অন্যান্য সুরক্ষা সামগ্রীর হয়ে উঠেছে আকাশ ছোঁয়া চাহিদা। শুধু চিকিৎসক নয় বরং রোগী এবং সাধারণ মানুষের মধ্যেও রয়েছে এর ব্যাপক চাহিদা। জীবন বাঁচানো এসব সুরক্ষা সামগ্রী হয়ে উঠছে আবার মাথা ব্যাথার কারণ। পরিবেশ দূষণের নতুন উপাদান হয়ে উঠছে এসকল উপকরণ। যার প্রমান মিলেছে ফ্রান্সের বিভিন্ন সমুদ্রে। পরিচ্ছন্নাতা নিয়ে কাজ করে স্থানীয় এমন একটি সংগঠনের দাবি , সমুদ্রে উদ্বেক জনক হারে বাড়ছে মাস্ক গ্লাবস সহ অন্যান্য সুরক্ষা সামগ্রীর বর্জ্য।

এবং তারা আরো বলে , ” সমুদ্রে এধরনের বর্জ্য পাওয়াটা আশ্চর্য লেগেছিলো তাদের কাছে, এর আগে কখনো এধরেন বর্জ্য পাইনি।করোনার এই মহামারিতে এই বর্জ্য প্রথম পেয়েছে এবং লকডাউন চলাকালীন সময়ে ও এই পরিমাণ বর্জ্য পাইনি যা লকডাউন খোলার পর থেকে বেড়ে চলেছে। নতুন এই দূষণের এটি কেবল শুরু । আর এর প্রধান কারণ হচ্ছে যেখানে সেখানে এই বর্জ্য গুলো ফেলা। আধিকাংশ মাস্ক এবং গ্লাবস কেবল একবার ব্যবহার যোগ্য । তাই প্রয়োজন শেষে রাস্তায় ছুড়ে ফেলছেন কেও কেও । যা বৃষ্টির পানির সাথে নদী হয়ে চলে যাচ্ছে সমুদ্রে। ” তবে এই দূষণের মাত্রা সহনীয় পর্যায়ে আছে বলে দাবী সংগঠনটির।

রাস্তায় মাস্ক গ্লাবস ফেলেদেয়া ঠেকাতে কঠোর হয়েছে ফ্রান্সের পরিবেষ মন্ত্রণালয় । দ্বিগুণ করা হয়েছে জরিমানার অংক । কিন্তু তাতেও থামানো যাচ্ছে না বেপরোয়া মানুষদের। আমাদের দেশেও উচিত এ বিষয়ে আইন জোরদার করা। না হলে ১৮ কোটি জনগনের দেশে মাস্ক হবে আরেক মহামারি দূষণ ।

সুরক্ষা সামগ্রীর মাধ্যমে এই দূষণের এই ভয়াবহ চিত্র তুলেছে ফ্রান্সের সেচ্ছাসেবী সংগঠন Operation Mark Copre এর স্কুভা ড্রাইভাররা।

Sharing is caring!

Advisory Editor
Kazi Sanowar Ahmed Lavlu
Editor
Nurul Afsar Mazumder Swapan
Sub-Editor
Barnadet Adhikary 
Dhaka office
38 / D / 3, 1st Floor, dillu Road, Magbazar.
Chittagong Office
Flat: 4 D , 5th Floor, Tower Karnafuly, kazir deori.
Phone: 01713311758

পুরানো খবর

নভেম্বর 2020
শনি রবি সোম বুধ বৃহ. শু.
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930  

ছবি ঘর

    WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com