Monday, 25/5/2020 | : : UTC+6
Green News BD

করোনার মতই মহাবিপদ হয়ে আসছে বেকারত্ব

করোনার মতই মহাবিপদ হয়ে আসছে বেকারত্ব

আমরা যারা ব্যাংক/এটিএম থেকে টাকা তুলে হোম ডেলিভারীতে কেনাকাটা সেরে গাম্যাজমেজে আলসেমি ভাঙা হাই তুলে হাহওয়া মুখের সামনে তুড়ি মেরে স্বগোক্তি করছিকী দিন আসল রে বাবা! তাদের কোনো কিছুতেই সমস্যা নেই। শুধু এতটুকু মনেরাখলেই চলবেদেশে দেড় কোটি মানুষ খুব শিগগিরই চাকরি হারাতে চলেছে! এর সাথে সারা বিশ্বের অন্তত আরও পঞ্চাশটাদেশের খতিয়ান দেয়া যায়। দরকার করছে না। ভারতের শীর্ষস্থানীয় দৈনিক The Hindu রিপোর্ট করেছে গ্লোবালি কোটি ৫০লক্ষ মানুষ চাকরিহীন হতে যাচ্ছে!’ Los Angeles Times এর একটা রিপোর্ট বলছেখোদ যুক্তরাষ্ট্রে ৪৫% মানুষ গৃহহীন হতেযাচ্ছে!’ এই লিস্ট আরও লম্বা করা যায়। সারা বিশ্বে করোনাভাইরাস প্যানডেমিক বা কোভিড১৯ যে সোয়া লক্ষ মানুষইতিমধ্যে মারা গেছে তাদের নিয়ে যতটা শোক পালিত হচ্ছে তারচেবেশি হচ্ছে কোটি কোটি মানুষের চাকরি চ্যুতির আশঙ্কা।বেকার হয়ে যাওয়ার অর্থনৈতিক চাপ। সামনে কী ভয়ঙ্কর ফিনানসিয়াল ডিজাস্টার আসছে তা আমরা অনুমানও করতে পারছিনা।

এই দুঃসময়ে কাউকে চাকরিচ্যুত করা যাবে নাকথাটা বলছে বিশ্বের প্রায় সব নেতা। আর সেই কথা মাটিতে পড়তে না পড়তেচাকরি হারাচ্ছে লাখ লাখ মানুষ! আইএলও তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাস কারণে আগামী তিন মাসের মধ্যে বিশ্বে সাড়ে ১৯কোটি মানুষ তাদের পূর্ণকালীন চাকরি হারাতে যাচ্ছেন। যার মধ্যে সাড়ে ১২ কোটি মানুষ বসবাস করেন এশিয়া প্রশান্তমহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোতে।

বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান পলিসি রিসার্চ ইন্সটিটিউটের হিসাবে, করোনার কারণে বাংলাদেশে চাকরি হারানোর তালিকায় যুক্তহতে পারেন অন্তত দেড় কোটি মানুষ।

প্রসঙ্গে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক . আহসান এইচ মনসুর বলেন, ‘করোনার কারণে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে অন্তত দেড়কোটি মানুষ কর্মচ্যুত হচ্ছেন বা হতে যাচ্ছেন। এটা বাংলাদেশের জন্য খুবই খারাপ খবর। এই দেড় কোটি মানুষ চাকরি হারালেওঅনিশ্চয়তার মধ্যে পড়বে অন্তত কোটি মানুষ (প্রতি পরিবারে গড়ে জন করে সদস্য)

দেড় কোটির মধ্যে অধিকাংশই ইতিমধ্যে বেকার হয়ে পড়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘গার্মেন্টস, ব্যাংক, ইন্স্যুরেন্স সরকার এইচারটি খাত ছাড়া বাকি সবই ইনফরমাল। করোনায় ফরমাল কর্মজীবী ছাড়া আর সবাই এখন বেকার। বেকারের এই সংখ্যা দেড়থেকে দুই কোটি।

এদিকে বাংলাদেশ গার্মেন্টস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল শ্রমিক ফেডারেশন বাংলাদেশ মুক্ত গার্মেন্ট শ্রমিক ইউনিয়ন ফেডারেশন এবংবাংলাদেশ সেন্টার ফর ওয়ার্কার্স সলিডারিটি বলছে, এই কয়েকদিনে প্রায় ১০ হাজার পোশাকশ্রমিক ছাঁটাইয়ের শিকার হয়েছেন।

দেশে বর্তমানে কোটি ৪০ লাখের মতো শ্রমিক কাজ করে। এর মধ্যে কোটি ৪০ লাখ মানুষ কাজ করে কৃষি খাতে। বাকি প্রায় কোটি শ্রমিক কাজ করছে শিল্প সেবা খাতে। এর মধ্যে অনানুষ্ঠানিক খাতেই অধিকাংশ শ্রমিক কাজ করে। বাংলাদেশপরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসাবে, দেশে কোটি ৪০ লাখ গরিব মানুষ আছে। তাদের মধ্যে পৌনে দুই কোটি মানুষ হতদরিদ্র।

এই চরম দুর্যোগে আপনি বাজারে কি দেখছেন? ঢাকাতেই ডিমের ডজন ৭৫ টাকা! শসা বিক্রি হচ্ছে ১৫ টাকা কেজি। বেগুন বাদেপ্রায় সকল সব্জি সস্তা! গ্রামে তো পানির দাম! গ্রামের পণ্য না হয় শহরে আসতে পারছেনা বলে সস্তা, কিন্তু ঢাকায় কেন সস্তা? কারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতা নেই। সাধারণ মানুষ ভয়েআতঙ্কে যথেচ্ছ টাকা খরচ করতে চাইছে না। রেমিট্যান্স আসা প্রায় বন্ধ।মধ্যপ্রাচ্য থেকে দলে দলে শ্রমিক ফিরে আসছে। যারা টিকে আছে তারা কেবলই পেটেভাতে টিকে রয়েছে।

সরকারের তরফে বলা হচ্ছেকোনোভাবেও চাষবাস যেন বন্ধ না হয়। উৎপাদন যেন ব্যহত না হয়।অথচ অর্থনীতির কমনসূত্রমতে যত বেশি উৎপাদন হবে তত বেশি চাহিদা কমবে।  এই মুহূর্তে শুধুমাত্র উৎপাদন বেশি হলে বা বাম্পার ফলন হলেইসমাধান হবে না, বরং বিপদ বাড়বে। উৎপাদক পথে বসবে।

তাই টাকা দরকার। যেভাবেই হোক এই সময়ে মানুষের হাতে টাকার যোগান থাকতে হবে।  প্রয়োজনে কেন? নিশ্চিতভাবেই সকলউন্নয়ন প্রজেক্ট বন্ধ করে সেই টাকা বিলি করতে হবে। জনে জনে বিলি করতে হবে। তবেই উৎপাদিত পন্য বিক্রি হবে। রোজারমাসে ঢাকার বাজারে শসার কেজি ১৫ টাকা খুবই এলার্মিং। ভীষণভাবে এলার্মিং।

লেখক

মঞ্জুরুল হক

সাংবাদিক

Sharing is caring!

Advisory Editor
Kazi Sanowar Ahmed Lavlu
Editor
Nurul Afsar Mazumder Swapan
Sub-Editor
Barnadet Adhikary 
Dhaka office
38 / D / 3, 1st Floor, dillu Road, Magbazar.
Chittagong Office
Flat: 4 D , 5th Floor, Tower Karnafuly, kazir deori.
Phone: 01713311758

পুরানো খবর

মে 2020
শনি রবি সোম বুধ বৃহ. শু.
« এপ্রিল    
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

ছবি ঘর

    WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com