যশোরে রি-প্যাকিংয়ের সময় ৫০ হাজার বস্তা মেয়াদোত্তীর্ণ সার জব্দ

যশোরের অভয়নগরে রি-প্যাকিংয়ের সময় বিপুল পরিমাণ মেয়াদোত্তীর্ণ ইউরিয়া (বিসিআইসি) সার জব্দ করা হয়েছে।

গত বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার ভাঙ্গাগেট মশরহাটী গ্রামে ভৈবর সেতুসংলগ্ন আক্তার অ্যাগ্রো অ্যান্ড ফার্টিলাইজার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কারখানায় সাউথ ডেল্টা শিপিং অ্যান্ড ট্রেডিং লিমিটেড ঢাকা নামে একটি প্রতিষ্ঠান ওই সার গুঁড়ো করে রি-প্যাকিং করছিল। বিষয়টি জানতে পেরে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে প্রায় ৫০ হাজার বস্তা মেয়াদোত্তীর্ণ ইউরিয়া সার জব্দ করে। এ সময় ওই প্রতিষ্ঠানের দুই কর্মচারীকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে অভয়নগর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

এ ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অভয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহীনুজ্জামান বলেন, আক্তার অ্যাগ্রো অ্যান্ড ফার্টিলাইজার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কারখানায় মেয়াদোত্তীর্ণ জমাট বাঁধা ইউরিয়া সার মেশিনের সাহায্যে গুঁড়ো করে রি-প্যাকিং করা হচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত বুধবার সন্ধ্যায় অভিযান চালানো হয়। ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় কারখানায় থাকা সব ইউরিয়া সার জব্দ করার পাশাপাশি সাউথ ডেল্টার দুজন স্টাফ গাজীপুরের রাশেদুল ইসলাম ও শহিদুল ইসলামকে আটক করা হয়। সাউথ ডেল্টা শিপিং অ্যান্ড ট্রেডিং লিমিটেড, গ্লোব চেম্বার (দ্বিতীয় তলা), ১০৪ মতিঝিলের স্বত্বাধিকারী এ কে এম নইমদ্দিন ও মশিউর রহমান টিটুসহ জড়িত শ্রমিকদের নামে সার ব্যবস্থাপনা আইনে অভয়নগর থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে। যার বাদী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গোলাম ছামদানী। এই অপরাধীদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। তা ছাড়া এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গোলাম ছামদানী জানান, অভিযান চলাকালে সাউথ ডেল্টা অভয়নগর শাখায় কর্মরত শ্রমিক-কর্মচারীরা কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। তা ছাড়া স্থানীয় প্রশাসন ও উপজেলা কৃষি অফিসের অনুমতি ছাড়াই সরকারি সার এভাবে রি-প্যাকিং করা অবৈধ। তিনি আরো জানান, ২০১৬-১৭ সালের ইউরিয়া সার, যা বস্তায় জমাট বেঁধে নষ্ট হয়ে গেছে। এ সার কৃষকের মাঝে পৌঁছালে কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সাউথ ডেল্টা প্রতারণার পথ ধরে কাতার, চায়না, দুবাই, সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশের নতুন মোড়কে নষ্ট সারগুলো প্যাকেটজাত করে অপরাধ করেছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

সাউথ ডেল্টার মাঠ সুপারভাইজার রফিকুল ইসলাম জানান, ইউরিয়া সারগুলো প্রায় তিন বছর আগের। প্রায় ৪০ হাজার বস্তা সার রয়েছে। নতুন বস্তায় রি-প্যাকিংয়ের অনুমতি রয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, তবে সেই অনুমতিপত্র খুলনা অফিসে রয়েছে।

মাঠ সুপারভাইজার রফিকুল ইসলামের কাছ থেকে পাওয়া সাউথ ডেল্টা শিপিং অ্যান্ড ট্রেডিং লিমিটেড, গ্লোব চেম্বার, মতিঝিলের স্বত্বাধিকারী এ কে এম নইমদ্দিন ও মশিউর রহমান টিটুর মোবাইল ফোন নম্বর বন্ধ পাওয়ায় তাঁদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Sharing is caring!

Related Articles

Back to top button