Thursday, 17/10/2019 | : : UTC+6
Green News BD

হাইড্রোজ, সোডা, ফিটকিরিসহ বিভিন্ন রাসায়নিক মিশিয়ে তৈরি হচ্ছে গুড়

হাইড্রোজ, সোডা, ফিটকিরিসহ বিভিন্ন রাসায়নিক মিশিয়ে তৈরি হচ্ছে গুড়

দেশের উত্তরাঞ্চলে নকল গুড়ে বাজার সয়লাব। এসব গুড়ে আখের রসের ছিটেফোটাও নেই। চিনির সঙ্গে ময়দা, ভুট্টার গুঁড়া, হাইড্রোজ, সোডা, ফিটকিরি, ক্ষতিকর রংসহ নানা বিপজ্জনক রাসায়নিক দ্রব্য মিশিয়ে এসব গুড় তৈরি হচ্ছে। এগুলো মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। তবে দেখতে হুবহু গুড়ের মতো। ফলে মানুষ না বুঝে কম দামে এসব গুড় কেজিতে কেজিতে কিনছে।

নওগাঁ ও জয়পুরহাট জেলার কয়েকটি হাট-বাজারে অনুসন্ধান চালিয়ে দেখা যায়, বাজারে আসল গুড় নেই। নকল গুড়ে বাজার সয়লাব। হাতেগোনা দু-একজন ব্যবসায়ীর কাছে যৎসামান্য আখের গুড় রয়েছে।

বদলগাছী উপজেলা সদর হাটের গুড় ব্যবসায়ী বারাতৈল গ্রামের সাইদুল ইসলাম বলেন, আসল গুড় তার কাছে নেই। তিনি কৃত্রিম উপায়ে তৈরি গুড় ৬০-৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছেন। তবে বাজারে আসল গুড়ের কেজি ৯০-১০০ টাকা। বেশি দামের জন্য কেউ আসল গুড় কিনতে চায় না।

স্থানীয় ব্যবসায়ী কুদ্দুস বলেন, ‘আমি গরিব মানুষ। গুড়ের ব্যবসা করে খাই। চাঁপাইনবাবগঞ্জ কারখানা থেকে গুড় এনে বিক্রি করি। কারখানার মালিকরা নিজ খরচে গুড় দোকানে পৌঁছে দেয়। শুনেছি এসব গুড় কৃত্রিম উপায়ে তৈরি হয়। শুধু নওগাঁ, জয়পুরহাট নয় উত্তরাঞ্চলসহ সারা দেশেই এখন এ ধরনের গুড় পাওয়া যায়। কম দাম বলে বিক্রিও হয় বেশি।’

পুরাতন ব্যবসায়ী জাহেদুল বলেন, ‘এসব ভগিজগি গুড় বিক্রি করতে মন চায় না। তাই ব্যবসা ছেড়ে দিয়েছি।’ নওগাঁর বদলগাছীর পাশের জয়পুরহাট জেলার কয়েকজন গুড় ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা জয়পুরহাট পূর্ব বাজারের গোপাল ও মুক্তির আড়ত থেকে গুড় কিনেছে।

জামালগঞ্জ বাজারের আব্দুল জব্বার ও বাবলু জানায়, প্রায় সপ্তাহেই তারা বাসায় খাবারের জন্য গুড় কিনে নিয়ে যায়। তবে কয়েক দিনের মধ্যেই সেই গুড় থেকে দুর্গন্ধ বের হয়। তাই প্রায়ই গুড় ফেলে দিতে হয়।

নকল গুড় প্রস্তুতকারকরা গুড়ের রং ঠিক রাখতে রাসায়নিক পরিশোধক দ্রব্য হাইড্রোজ ব্যবহার করে, যা মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। হাইড্রোজ দেওয়া গুড়ে হাইড্রোজের গন্ধ থাকে। গুড়ের রং হালকা সাদা বা অনুজ্জ্বল সোনালি হয়, যা ক্রেতাদের আকৃষ্ট করে।

এ ব্যাপারে বগুড়া শহীদ জিয়া মেডিক্যাল কলেজের অধ্যাপক ডা. সোহরাব হোসেন বলেন, ‘ক্ষতিকারক রাসায়নিক দ্রব্য দিয়ে তৈরি নকল গুড় খেলে মানুষের মরণব্যাধি ক্যান্সার, কিডনি ড্যামেজ, লিভার পচনসহ নানা রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।’

নওগাঁ জেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর সামসুল হক বলেন, ‘বাজারে বাজারে গুড় পরীক্ষা করে রিপোর্ট দেওয়ার জন্য জেলার প্রত্যেকটি উপজেলার স্যানিটারি ইন্সপেক্টরকে নির্দেশ দিয়েছি। তারপর এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Sharing is caring!

Advisory Editor
Kazi Sanowar Ahmed Lavlu
Editor
Nurul Afsar Mazumder Swapan
Sub-Editor
Barnadet Adhikary 
Dhaka office
38 / D / 3, 1st Floor, dillu Road, Magbazar.
Chittagong Office
Flat: 4 D , 5th Floor, Tower Karnafuly, kazir deori.
Phone: 01713311758

পুরানো খবর

অক্টোবর 2019
শনি রবি সোম বুধ বৃহ. শু.
« সেপ্টে.    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031  

ছবি ঘর