Sunday, 15/12/2019 | : : UTC+6
Green News BD

সম্পাদকীয়

সম্পাদকীয়

Post by relatedRelated post

নিসর্গবিদ, লেখক, শিক্ষক ও অনুবাদক দ্বিজেন শর্মার প্রতি সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধাজ্ঞাপনের মধ্যদিয়ে শেষ বিদায় জানলো। রবিবার সকাল সাড়ে এগারটা থেকে দুপুর সাড়ে বারটা পর্যন্ত সমাজের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার লোকজন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, সংস্থা, সংগঠন, ছাত্র-ছাত্রীরা প্রয়াত দ্বিজেন শর্মার কফিনে পুস্পার্ঘ অর্পণ করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শেষ শ্রদ্ধা জানান। এই শ্রদ্ধাজ্ঞাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট। শ্রদ্ধাজ্ঞাপন শেষে ছায়ানটের শিল্পীরা ‘আগুনের পরশ মণি ছোঁয়াও প্রাণে’ গানটি পরিবেশন করেন এবং এক মিনিট নিরবতা পালন করে দেশের এই কৃতি সন্তানকে শেষ বিদায় জানানো হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে দশটায় তার মরদেহ বাংলা একাডেমীতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তার কফিন নেয়া হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাজ্ঞাপনের পর তাঁর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় নটরডেম কলেজে। এ কলেজে দ্বিজেন শর্মা শিক্ষকতা করেন। পরে সেখান থেকে রাজধানীর সবুজবাগের রাজারবাগে বরদেশ্বরী কালী মন্দির সংলগ্ন শ্বশানে তাঁর শেষকৃত্য অনুষ্ঠানের জন্য মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয়। শ্বশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হবার পর তার চিতাভস্ম সুনামগঞ্জের বড়লেখা উপজেলার কাঠালতলী গ্রামে নিজ বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে তাঁর স্মরণে সমাধি স্থাপিত হবে বলে জানান দ্বিজেন শর্মার ছেলে সৌমিত্র শর্মা। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় তার স্ত্রী দেবী শর্মা, মেয়ে শ্রেয়সী শর্মাসহ পরিবারের সদস্যগণ ও আত্মীয়স্বজন উপস্থিত ছিলেন।

প্রকৃতি নিয়ে এমন ভাবনা যিনি ভাবেন তিনি চলে গেলেন প্রকৃতির অদৃশ্যে। তার ভাবনার একাংশ, ” অরণ্য বিপুল পরিমাণ বৃষ্টিজল শুষে নেয় এবং বাষ্পমোচনের মাধ্যমে বাতাসে ফিরিয়ে দিয়ে বন্যার আশঙ্কা কমায়। বৃষ্টির ফোঁটা সরাসরি মাটিতে পড়লে ভূমিক্ষয় বাড়ে, বন্যার জল কাঁদা ঘোলা হয়ে ওঠে এবং তাতে নদীতে পলি জমে, সেগুলির নাব্যতা কমে, বন্যার প্রকোপ বৃদ্ধি পায়। বাতাসের আর্দ্রতা টিকিয়ে রাখা ও আনুষঙ্গিক অজস্র সুফলের সঙ্গে জড়িত এই স্তরটির গুরুত্ব সমধিক। অরণ্য উচ্ছেদে ভূমিক্ষয় ও সংশ্লিষ্ট সমস্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ইকোলজিক্যাল শৃঙ্খলের অনেকগুলি অঙটাও ভেঙে পড়ে। ট্রান্স-আমাজন সড়ক নির্মাণে ব্রাজিলের বৃষ্টিঘন অরণ্যের ব্যাপক ক্ষতির ফলে দক্ষিণ আমেরিকা তথা গোটা বিশ্বের আবহাওয়া সঞ্চালনে মারাত্মক বিঘ্ন ঘটে। জলবিদ্যুৎ স্টেশনের জন্য বাঁধ নির্মাণেও এই অরণ্যের একটা বড় অংশ খোয়া গেছে। বিশ্বের জলবায়ুর উপর নিরক্ষীয় অঞ্চলের বনভূমির প্রভাব খুবই প্রকট বিধায় উন্নত দেশগুলি এই বন সংরক্ষণের খুবই আগ্রহী হয়ে ওঠেছে। এই কারণে ব্রাজিলের প্রকৃতি সংরক্ষণের সংগ্রামের অন্যতম সৈনিক চিকো মেন্দিস (১৯৪৪-১৯৮৮) বন ধ্বংসকারীদের হাতে নিহত হলে উন্নত বিশ্বে ব্যাপক আলোড়ন দেখা দিয়েছিল। প্রকৃত অপরাধীর কঠোর শাস্তিদানের দাবি ছাড়াও ওইসব দেশের সবুজ সংস্থাগুলি তাঁকে বহু মরণোত্তর পুরষ্কারে ভূষিত করে। প্রযোজক ডেভিড পুটম্যান প্রকৃতিপ্রেমী এই শহীদের জীবনী নিয়ে চলচ্চিত্র তৈরির অনুমতির জন্য মেন্দিসের স্ত্রীকে দিয়েছেন ১০ লক্ষাধিক ডলার। তাঁকে নিয়ে অনেকগুলি বই, বহু নিবন্ধ, রচনা ও টিভি দলিলচিত্র তৈরির কাজ চলছে। প্রসঙ্গত এঙ্গেলসের মতো কট্টর বস্তুবাদী মনীষীর একটি সতর্কবাণী মনে আসে:

“প্রকৃতির ওপর আমাদের জয়লাভ নিয়ে বাড়াবাড়ি ধরনের আত্মতুষ্টির কোনো হেতু নেই। এই ধরনের প্রতিটি বিজয়ের জন্য প্রকৃতি প্রতিশোধ নিতে ভুলে না। সন্দেহ নেই, প্রত্যেকটি বিজয় শুরুতে অপ্রত্যাশিত সুফল ফলায়, কিন্তু অতঃপর তাতে সম্পূর্ণ পৃথক, অচিন্তিতপূর্ব কুফল দেখা দেয়, যাতে প্রায় সর্বদাই প্রথমটি বাতিল হয়ে যায়।”

Sharing is caring!

Advisory Editor
Kazi Sanowar Ahmed Lavlu
Editor
Nurul Afsar Mazumder Swapan
Sub-Editor
Barnadet Adhikary 
Dhaka office
38 / D / 3, 1st Floor, dillu Road, Magbazar.
Chittagong Office
Flat: 4 D , 5th Floor, Tower Karnafuly, kazir deori.
Phone: 01713311758

পুরানো খবর

ডিসেম্বর 2019
শনি রবি সোম বুধ বৃহ. শু.
« নভে.    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  

ছবি ঘর